Sunday, 04 December 2022

   01:05:34 AM

logo
logo
ফুসফুসের কার্যকারিতা বাড়ায় যেসব খাবার

1 year ago

স্বাস্থ্যের ওপর মারাত্মক প্রভাব ফেলতে পারে বায়ুদূষণ। শ্বাসকষ্টজনিত রোগকে কার্ডিওভাসকুলার রোগে পরিণত করতে পারে এই দূষণ। তাই ফুসফুস ভালো রাখতে যত্নশীল হওয়া প্রয়োজন। ফুসফুস আমাদের দেহের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গগুলোর একটি। শ্বাস-প্রশ্বাস, রক্তে অক্সিজেন প্রবেশ, কার্বন-ডাই অক্সাইড নির্গমনসহ দেহের অনেক জরুরি কাজ করে। ফুসফুস প্রাণীর চালিকাশক্তি। সুস্থ ফুসফুসের কারণে মানুষ সুস্থভাবে জীবনযাপন করে থাকে। এছাড়া এমন কিছু খাবার আছে যা নিঃশ্বাসের সমস্যা কমাতে সাহায্য করে। সেই সঙ্গে ফুসফুসের কার্যকারিতা বাড়ায়।

আসুন তাহলে জেনে নেই যেসব খাবার ফুসফুসের কার্যকারিতা বাড়ায়-

মধুঃ প্রাকৃতিক মিষ্টি এবং অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল বৈশিষ্ট্যের জন্য জনপ্রিয় মধু। এটি শ্বাসকষ্ট কমায়। নিঃশ্বাস পরিষ্কার করতে এবং ফুসফুসের স্বাস্থ্য বজায় রাখতেও এটি সহায়ক। হালকা গরম পানিতে এক চামচ মধু ফুসফুস পরিষ্কার করার জন্য অত্যন্ত উপকারী।

ব্রকলি : ক্রুসিফেরাস গোত্রের সবজি ব্রকলি ফুসফুসের কার্যকারিতা বাড়ায়। এতে থাকা বিভিন্ন উপাদান ফুসফুসের ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়। ব্রকলিতে পর্যাপ্ত পরিমাণে ভিটামিন সি থাকায় এটি শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ভূমিকা রাখে। এ ছাড়া ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া এবং ভাইরাসের হাত ফুসফুসকে রক্ষা করতেও ব্রকলি কার্যকরী।

আপেল : আপেলে থাকা ফ্ল্যাভনয়েড ফুসফুসের ক্ষতি হওয়া প্রতিরোধ করে। এতে থাকা ভিটামিন সি এবং ই শ্বসনতন্ত্রের জন্য উপকারী। 

গাজর : গাজরে থাকা বিটা ক্যারোটিন ফুসফুসের কর্মক্ষমতা বাড়ায়। গবেষকরা বলছেন, বিটা ক্যারোটিন এমন একটি অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যা ফুসফুসকে ফ্রি রেডিকেলের হাত থেকে রক্ষা করে। এটি খেলে ফুসফুস ক্যান্সারেরও ঝুঁকি কমে। 

বাদাম  বীজ : প্রায় সব ধরনের বাদাম নিঃশ্বাস উন্নত করে। এতে থাকা ম্যাগনেশিয়াম ফুসফুসের স্বাস্থ্য ভালো রাখে। এছাড়া বাদাম ও বিভিন্ন ধরনের বীজ হৃদরোগের জন্যও উপকারী।

আদা : আদায় থাকা অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরী উপাদান ফুসফুসের কার্যকারিতা বাড়ায়। সেই সঙ্গে যেকোন ধরনের সংক্রমণ কমাতে সাহায্য করে। নিঃশ্বাসের সমস্যা হলে চায়ের সঙ্গে আদা মিশিয়ে, স্যুপে, সালাদে দিয়ে কিংবা এমনি চিবিয়েও আদা খেতে পারেন। 

হলুদ : রান্নার উপকরণ হিসেবে পরিচিত হলুদ ফুসফুসের জন্য দারুণ উপকারী। নিয়মিত হলুদ চা কিংবা সামান্য কাঁচা হলুদ খেলে শরীরের প্রদাহ কমে। গবেষণায় দেখা গেছে, হলুদ খেলে ফুসফুসের ক্যান্সারের ঝুঁকিও কমে।

বাঁধাকপি : ব্রকলির মতো বাঁধাকপিও ফুসফুসের ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়। সেই সঙ্গে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।